রেকর্ড সংশোধনের মামলা

সরকার বিভিন্ন সময়ে খাজনা আদায়ের উদ্দেশ্যে সারাদেশে জরিপ করে থাকে এবং এই জরিপের রিপোর্ট হিসাবে এই খতিয়ান প্রকাশ করে থাকে। সরকারের এই ভূমি জরিপের মূল উদ্দেশ্য হল ভূমির প্রকৃত দখলকারী থেকে খাজনা আদায় করা। খতিয়ান হচ্ছে দখলের প্রামাণ্য দলিল, মালিকানার দলিল নয় । খতিয়ানে মালিক ছাড়া অন্য কারো নাম অন্তর্ভুক্ত হয়ে গেলে ওই ভূমিতে । যেমন সেই ব্যক্তির কোনোরূপ মালিকানা সৃষ্টি হয় না, তেমনি প্রকৃত মালিকের মালিকানা স্বত্ব ও নষ্ট হয় না। কিন্তু খতিয়ান একটি সরকারি দলিল, ভূমি হস্তান্তর, খাজনা/রাজস্ব আদায়সহ অন্যান্য ক্ষেত্রে এটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ দলিল। তাই খতিয়ানে ভুল হলে তা সংশোধন করা বাধ্যতামূলক ।যদিও জরিপ চলাকালিন সময়ে খতিয়ানে কোন ভুল ধরা পরলে তখন সেটেলমেন্ট অফিসারের নিকট ৩০ ধারা / ৩১ ধারায় আপিল করে খুব সহজেই ভুলগুলো সংশোধন করে নেওয়া যায়। কিন্তু যদি এই সময়ের মধ্যে ভুলগুলো সংশোধন করা না হয় এবং চূড়ান্ত খতিয়ান প্রকাশিত হয়ে যায় , তবে উক্ত খতিয়ান সংশোধনের ক্ষমতা আর সেটেলমেন্ট অফিসারের থাকে না তখন এই খতিয়ান সংশোধন করতে হয় কোর্টে মামলা করে। এখন আমি দেখাবো কিভাবে চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত একটি খতিনের ভুল সংশোধন করা যায় ।তবে চূড়ান্ত রেকর্ড প্রকাশিত হয়ে গেলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে সেটেলমেন্ট অফিসার রেকর্ড সংশোধন করতে পারে, যেমন উক্ত ভুলগুলো যদি হয় শুধুমাত্র কারণিক ভুল / প্রিন্টিং-এ ভুল সেক্ষেত্রে এধরনের সামান্য ভুল গুলো অবশ্য সেটেলমেন্ট অফিসার সংশোধন করতে পারে।

তবে অন্যান্য সকল প্রকারের ভুল সংশোধনের ক্ষমতা একমাত্র কোর্টের খতিয়ান সংশোধন করতে কি কি কাগজপত্র লাগবে উক্ত জমিতে আপনার মালিকানার সকল দলিল পত্র (যেমন – মূল দলিলের, বায়া দলিল , পুর্বের খতিয়ানের কপি ) চূড়ান্তভাবে প্রাকাশিত ভুল রেকর্ডের কপি নিজের আইডি কার্ডের ফটো কপি এরপর প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র নিয়ে এখতিয়ারধীন কোর্টে যেতে হবে এবং কোর্টে গিয়ে একজন দক্ষ সিভিল আইনজীবী কে উক্ত খতিয়ানটি সংশোধনের দায়িত্ব দিতে হবে।

কি মামলা করতে হবেঃ এক্ষেত্রে আইনজীবীকে ভূমি জরিপ ট্রাইব্যুনালে / দেওয়ানী আদালতে রেকর্ড সংশোধনীর জন্য একটি “ঘোষণা মূলক” মোকাদ্দমা করতে হবে

কেমন সময় লাগতে পারেঃ আমাদের দেশের দুর্বল বিচার ব্যবস্থার কারনে এই সামান্য কাজটি করতেও আপনাকে ২-৩ বছর অপেক্ষা করতে হতে পারে, খতিয়ান ভুল এই মর্মে আদালত ডিক্রি/রায় দিলে সেই ডিক্রির সার্টিফাইড কপি নিয়ে খতিয়ান সংশোধনের জন্য সেটেলমেন্ট অফিসারের কাছে আবেদন করতে হবে।সেটেলমেন্ট অফিসার সবকিছু দেখে সন্তুষ্ট হলে পূর্বের ভুল রেকর্ডটি সংশোধন করে নতুন করে একটি রেকর্ড প্রকাশ করবে

উল্লেখ্য, ভুলক্রমে কোনো ব্যক্তির জমি ১ নং খাস খতিয়ানে অন্তর্ভুক্ত হয়ে গেলে একই পদ্ধতিতে তা সংশোধন করতে হয়।

422 Views
Leave A Reply

Your email address will not be published.